শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৩:০২ অপরাহ্ন

মহানগর ও জেলা জাতীয়পার্টি নামফলক ভেঙ্গেছে দুষ্কৃতকারীরা এমপি খোকার সম্পৃক্ততা নেই

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: / ১১ জন পড়েছেন
শনিবার, ২১ নভেম্বর, ২০২০

গত ১৮ নভেম্বর ২০২০, বহুল প্রচারিত দৈনিক পত্রিকায়, অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘উন্নয়ন কাজের নাম নিয়ে এমপি খোকা ও চেয়ারম্যান আনোয়ারের দ্বন্দ্ব, প্রকল্প বন্ধের শঙ্কা’  শিরোনামের খবরসহ উক্ত বিষয়ে বিভিন্ন শিরোনামের খবরে যে বক্তব্য প্রকাশিত ও প্রচারিত হয়েছে- তা সম্পূর্ণ বানোয়াট ও কল্পনাপ্রসুত। প্রকাশিত ওই বক্তব্যের মধ্যে সামান্যতম সত্যও নেই।

সোনারগাঁ জি.আর ইনস্টিটিউশন স্কুল এন্ড কলেজের অভিভাবকদের মাঝে করোনাকালে শিক্ষার্থীদের বেতন নিয়ে অসন্তোষ সৃষ্টি হয়। ওই বিষয়ে অভিভাবকদের সঙ্গে বৈঠক করতে ১৭ নভেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার দুপুরে বিদ্যালয়ে উপস্থিত হন নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম, বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ সুলতান মিয়া, কাউন্সিলর জাহেদা আক্তার মনি, কাউন্সিলর দুলাল মিয়া, বিদ্যালয় গভর্ণিং বডির সদস্য মোহাম্মদ আলী, সোনারগাঁ পৌর জাতীয় পার্টির সভাপতি এম.এ জামান, শিক্ষানুরাগী আলেয়া আক্তারসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। বিদ্যালয়ে প্রবেশ করে এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা শিক্ষার্থীদের বেতন নিয়ে অসন্তোষ সৃষ্টির বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সাথে বৈঠক করেন। বৈঠকে তিনি বলেন- আমি চাই এ অসন্তোষ দূর করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় থাকুক। সরকার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বেতন পরিশোধ করেছেন। তারপরেও যদি কোন বেতনে অর্থের প্রয়োজন হয়, সেটা আমি দেখবো। তিনি বিদ্যালয়ের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলেন এবং সমাধানের প্রতিশ্রুতি দেন। বৈঠক শেষে এমপি খোকা নেতৃবৃন্দেরকে নিয়ে বিদ্যালয় ত্যাগ করেন। পরবর্তীতে জানা যায়- অজ্ঞাত কোন দুষ্কৃতকারী বিদ্যালয়ের গেইটে লাগানো নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেনের নামে লাগানো নামফলকটি ভেঙ্গে ফেলে, যার সঙ্গে মাননীয় সাংসদ লিয়াকত হোসেন খোকার সামান্যতমও সম্পৃক্ততা নাই। আমরা এমন ঘৃন্য ও ন্যাক্করজনক কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

মাননীয় সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার উপানুষ্ঠানিক পত্রের আলোকে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষেদের অর্থায়নে সোনারগাঁ উপজেলায় ইতিপূর্বেও বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক প্রকল্প বাস্তবায়ন হয়েছে এবং সকল স্থানেই নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের নামের ফলক ব্যবহার করা হয়েছে। উক্ত বিষয়ে মাননীয় সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা কখনও বিরুপ মন্তব্য করেননি। জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের সাথে মাননীয় সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার কোন দ্বন্দ্ব নেই। মাননীয় সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা নামফলকে নিজের নাম দেখানোর জন্য রাজনীতি করেন না। করোনাকালীন সময়ে যখন অনেকেই দু’একদিন অসহায় মানুষকে কয়েক প্যাকেট খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করে ঘরের কোনে লুকিয়ে পড়েছিলেন, তখনও এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা মাসের পর মাস সোনারগাঁয়ের অসহায় মানুষের দুয়ারে দুয়ারে হাজির হয়েছিলেন, নিজের সাধ্যানুসারে সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন। তিনি দখলবাজ, মাদক ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি গ্রহণ করে আসছেন। তিনি সোনারগাঁয়ের উন্নয়নে বিশ্বাসী। পরিকল্পিতভাবে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব আনোয়ার হোসেনের সম্মান ক্ষুন্ন করতে এবং রাজনৈতিকভাবে মাননীয় সংসদ সদস্যের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে উদ্দেশ্যেপ্রনোদিত ভাবে স্থানীয় একটি চক্র ঈর্ষান্বিত হয়ে তাঁর বিরুদ্ধে অপপ্রচার করে বেড়াচ্ছে। অশুভ উদ্দেশ্যে এমন ঘৃণীত ঘটনা ঘটিয়ে ষড়যন্ত্রকারীরা লিয়াকত হোসেন খোকা এমপি’র সম্মানের সাথে সাথে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব আনোয়ার হোসেনের সম্মানেও ব্যাপকভাবে আঘাত হেনে অপরাজনীতির সুবিধা অর্জন করতে চাচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে এমপি খোকা প্রতিহিংসা ও হানাহানীর রাজনীতির পরিবর্তে রাজনৈতিক সহাবস্থান নিশ্চিত করার মাধ্যমে উন্নয়নের আলোয় উদ্ভাসিত শান্তিময় সোনারগাঁ উপজেলা গড়তে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। মাননীয় সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার নামে মিথ্যা, অপপ্রচার ও বিভ্রান্তিমূলক খবর প্রকাশ করা হলেও তার উন্নয়ন কর্মকান্ডের কোন বিবরণ খবরে উল্লেখ নেই। অথচ উদ্দেশ্যে প্রনোদিত ভাবে বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকা, অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নাম পরিচয়হীন সূত্রের উদ্বৃতিতে সম্পূর্ণ অসত্য ও বানোয়াট বক্তব্য প্রকাশ করা হয়েছে। এমতাবস্থায় ২০ নভেম্বর শুক্রবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ মহানগর জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক ও বন্দর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সানাউল্লাহ্ সানু, সদস্য সচিব আকরাম আলী শাহীন এবং জেলা জাতীয় পার্টির নেতা শাহ্ মোঃ হানিফ যৌথ বিবৃতিতে উল্লেখিত খবরে প্রকাশিত ও প্রচারিত তথ্য এবং বক্তব্যের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায়।

অতএব জনাব বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার স্বার্থে উল্লেখিত খবরে যে বানোয়াট ও অসত্য বক্তব্য প্রকাশ করা হয়েছে তা- প্রত্যাহার পূর্বক আমাদের প্রতিবাদ যথাযোগ্য গুরুত্বের সাথে প্রকাশ করার অনুরোধ জানাচ্ছি।

আর্কাইভ


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও খবর